বিএনপি-জামায়াত করলে কেউ মুক্তিযোদ্ধা থাকে না

143

স্টাফ রিপোর্টার: কঠোর সমালোচনার মুখে ইতিহাসবিদ অধ্যাপক ড. মুনতাসীর মামুন মন্তব্য করেছেন, ‘বিএনপি-জামায়াত করলে কেউ মুক্তিযোদ্ধা থাকে না’।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দিনাজপুরের বীরগঞ্জের সাতোর ইউনিয়নের চৌপুকুরিয়া মাঝাপাড়া এবং নিজপাড়া ইউনিয়নের দামাইক্ষেত্র গণহ’ত্যার স্মৃতিফলক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।বাংলাদেশ একটি অদ্ভুত দেশ উল্লেখ করে মুনতাসীর মামুন বলেন, এখানে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি আছে। আবার স্বাধীনতাবিরোধী শক্তিও আছে।

পৃথিবীর কোথাও এরকম নেই। কারণ কোনো দেশ স্বাধীন হয়ে গেলে সেখানে স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি আর থাকে না। তিনি বলেন, বিএনপি করলে বা জামায়াত করলে কেউ মুক্তিযোদ্ধা থাকে না। যদি আপনি বলেন আমি মুক্তিযোদ্ধা ছিলাম; কিন্তু আপনি মুক্তিযোদ্ধা থাকলে তো মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের দল ছাড়া অন্য দল করতে পারেন না।তাহলে মুক্তিযোদ্ধা থাকলেন কোথায়?

মুনতাসীর মামুন বলেন, মুক্তিযুদ্ধে ৫ লাখ নারীর ধর্ষ’ণের শিকার হয়েছেন। আমরা যখন স্বাধীন হই, তখন বলা হতো নারী ধর্ষিত হয়েছে আট থেকে ১০ লাখ। এটি আমি রেডিওতে শুনেছি। দিনে দিনে এটি দুই লাখে নেমে আসে।

অথচ গবেষণায় এসেছে, নারী ধর্ষিত হয়েছে ৫ লাখের বেশি, হাইকোর্টের রায়ে এ সংখ্যাকে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে।

স্মৃতিফলক উন্মোচন অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বাংলাদেশ ইতিহাস সম্মিলনী দিনাজপুরের সভাপতি মোজাম্মেল হক, সাধারণ সম্পাদক ছায়েদ আলী, গণহ’ত্যা-নি’র্যাতন ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক গবেষণা কেন্দ্রের কোর্স পরিচালক অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

আরো পড়ুন,এখনকার রাজনীতিবিদদের কথাবার্তা রিকশাচালকের মতো: কাদের

এখনকার দিনের রাজনীতিবিদরা রিকশাচালকের মতো কথাবার্তা বলছেন উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, রাজনীতিতে ভিন্নমত খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার। ভিন্নমত থাকবেই। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য, আমাদের দেশে রাজনৈতিক অসহিষ্ণুতা বেড়ে গেছে।

বুধবার ঢাবির টিএসসি মিলনায়তনে ঢাকা ইউনিভার্সিটি পলিটিক্যাল সাইন্স ডিপার্টমেন্ট অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন (ডিইউপিডিএএ) আয়োজিত পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।কাদের পরস্পরের মধ্যে সম্পর্ক তৈরি করতে রাজনীতিবিদদের প্রতি আহ্বান জানান। সেতুমন্ত্রী বিভক্তির রাজনীতি পরিহার করে সুস্থ রাজনীতিতে ফিরে আসার জন্য তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘আমরা নিজেদের মধ্যে সম্পর্কের সেতু তৈরির পরিবর্তে অসহিষ্ণুতার দেয়াল তৈরি করছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের মধ্যে আবার সহিষ্ণুতা ফিরিয়ে আনতে হবে। বিভেদের সংস্কৃতি হ্রাসে পরস্পরের মধ্যে সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলা অত্যন্ত জরুরি।অসুস্থতা থেকে সুস্থ হয়ে ফিরে এলে যারা শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি জীবনের শেষ ভাগে পৌঁছে গিয়েছিলাম। আমি অলৌকিকভাবেই আবার ফিরে এসেছি। আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসার কারণেই এটা সম্ভব হয়েছে।’

ডিইউপিডিএএর সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাবেক এমপি নাজমুল হক প্রধান, যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত মো. হুমায়ুন কবির প্রমুখ।

আরো পড়ুন, কোটি কোটি টাকার টেন্ডারবাজিতে অংশ নিয়েছেন ভিপি নুর: প্রধানমন্ত্রীর উপপ্রেস সচিব
২৫ ডিসেম্বর ২০১৯,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুরের রাজনৈতিক পরিচয় নিয়ে নিজের ফেসবুকে পেজে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর উপপ্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন।

তাতে তিনি লিখেছেন, ডাকসুর ভিপি নুরুকে যারা নির্দলীয় বলে তারা বোকার স্বর্গে বাস করেন। কেন বলেছি তার যথেষ্ট কারণ আছে।
নুরু যখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে শিবিরের রাজনীতি উন্মুক্ত করার দাবি জানায়…
নুরু যখন খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করে….

আমেরিকান এম্বাসি ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সকল অনুষ্ঠানে যখন নুরুকে সুসজ্জিত অবস্থায় দেখা যায়….
নুরু যখন বহিরাগতদের সশস্র অবস্থায় ডাকসু কার্যালয়ে এনে আড্ডা জমায়…
নুরু যখন ডাকসু ভিপি হয়ে কোটি কোটি টাকার টেন্ডারবাজিতে অংশ নেয়…

এতোসবের পর তাকে সাধারণ নির্দলীয় ছাত্র নেতা বলাটা অজ্ঞতা ছাড়া কিছুই না।
আজ পর্যন্ত কোনো ডাকসু ভিপিই ক্যাম্পাসে স্বাধীনতা বিরোধী জামাত শিবিরের রাজনীতি উন্মুক্ত করার কথা বলেনি.
কোনো ডাকসু ভিপিকেই দায়িত্বে থাকা অবস্থায় এম্বাসিগুলোর দাওয়াতে হরদম দেখা যায়নি..
দায়িত্বে থাকা অবস্থায় কোনো ডাকসু ভিপির বিরুদ্ধেই টেন্ডারবাজির অভিযোগ নেই…

নুরু এইখানে একটা প্রতীক মাত্র… বাকিটা বুঝে নেন। প্রতিটি সংগঠনেরই কর্মসূচির জন্য আর্থিক সোর্স আছে। সবারটা সবাই জানে। আমি নিশ্চিত নুরুদেরটা কেউ জানেনা।
(তবে আমার কোনো যুক্তিই ডাকসু ভিপিকে মারা সমর্থন করে না।)

Loading...