থানায় তদবীরে গিয়ে যুবলীগ নেতার হাজতবাস

55

স্টাফ রিপোর্টার: মো. জুলহাস মোল্লা। ফাইল ছবিরাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ঘাটে ট্রাক পারাপারে দালাল চক্রের ৫ সদস্যকে আটক করেছে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ।

অনৈতিকভাবে আটকৃতদের ছাড়িয়ে নিতে তদবীর করতে এসে উল্টো দুই ঘণ্টা থানা হাজতে আটক থাকতে হল দৌলতদিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জুলহাস মোল্লাকে।

আটককৃত দালালরা হলেন গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের দুলাল বেপারীরপাড়া গ্রামের আকেন শেখের ছেলে জসিমউদ্দিন শেখ (২৮), উত্তর দৌলতদিয়া কাইমদ্দিন মোল্লারপাড়া গ্রামের শহিদ মোল্লার ছেলে সুমন মোল্লা (২৫), মজিদ শেখেরপাড়া গ্রামের বারেক ভুইয়ার ছেলে মুসা ভুইয়া (২২), হোসেন মণ্ডলেরপাড়া গ্রামের লালু মোল্লার ছেলে রানা মোল্লা (২৬) ও রাজবাড়ী সদর উপজেলার বরাট ইউনিয়নের সাজাপুর গ্রামের আফতার মোল্লার ছেলে আকরাম মোল্লা (২২)।

পুলিশ সূত্র জানায়, সোমবার দিনগত রাতে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরিতে পণ্যবাহী ট্রাক পারাপারের টিকিট চক্রের ওই ৫ দালালকে হাতেনাতে আটক করা হয়। মঙ্গলবার সকালে তাদের ছাড়িয়ে নেয়ার জন্য তদবীর করতে থানায় যান দৌলতদিয়া ইউনিয়নের মজিদ শেখেরপাড়া গ্রামের আহেজ মোল্লার ছেলে ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জুলহাস মোল্লা।

এ সময় গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসির নির্দেশে তাকে ২ ঘণ্টা থানা হাজতে আটক রাখা হয়।
এ বিষয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি আশিকুর রহমান যুবলীগ নেতাকে থানা হাজতে ২ ঘণ্টা আটক রাখার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, জুলহাস ভবিষ্যতে এ ধরনের অনৈতিক কোনো বিষয়ের তদবির নিয়ে থানায় আসবেন না মর্মে মুচলেকা দিলে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

আটককৃত ৫ জনকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবদুল্লাহ আল মামুনের ভ্রাম্যমাণ আদালতে পাঠানো হয়েছে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের রায় অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
দৌলতদিয়া ঘাটে পরিবহন সেক্টরের চাঁদাবাজি কঠোর হস্তে দমন করা হবে বলে ওসি প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

Loading...