সম্রাটকে গ্রেপ্তার করার মতো তথ্য-প্রমাণ এখনো পাওয়া যায় নি: কাদের

200

ঢাকা দক্ষিণের যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটের গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, শুদ্ধি অভিযানে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। গ্রেপ্তার করার মতো তথ্য-প্রমাণ পেলে ইসমাইল হোসেন সম্রাটকেও গ্রেপ্তার করা হবে।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।
ওবায়দুল কাদের বলেন, এ শুদ্ধি অভিযান অপরাধীদের বিরুদ্ধে। বিশেষ কোনো দল বা ব্যক্তির বিরুদ্ধে এই অভিযান নয়। এই অভিযানে কোনো অপরাধীই ছাড় পাবে না। তথ্য-প্রমাণ পেলেই গ্রেপ্তার করা হবে। সম্রাটকে গ্রেপ্তারের বিষয় সময় হলেই জানা যাবে বলে জানান তিনি।

আরো পড়ুন , ৪০ লক্ষ টাকার অনুদান দিয়ে আ.লীগের উপদেষ্টা হলেন ফেনীর জয়নাল হাজারী

২০০১ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে আত্মগোপনে চলে যাওয়া এবং পরবর্তীতে বি’র্তকিত কর্মকান্ডের জন্য আ’লীগ থেকে বহিষ্কৃত হওয়া ফেনীর বহুল আলোচিত নেতা ও সাবেক সংসদ সদস্য জয়নাল হাজারীকে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য করা হয়েছে।

বুধবার (০২ অক্টোবর) রাতে গণভবনে দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে এক বৈঠকে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে এই দায়িত্ব দিয়েছেন।বৈঠকে উপস্থিত আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বেশ কিছুদিন ধরে অসুস্থ জয়নাল হাজারীকে গত সেপ্টেম্বরে চিকিৎসার জন্য ৪০ লাখ টাকা অনুদান দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় তাকে ভালোভাবে চিকিৎসা করানোর পরামর্শ দেন বঙ্গবন্ধু কন্যা। ১৯৮৪ সাল থেকে ২০০৪ পর্যন্ত বিশ বছরের বেশি সময় ধরে ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন জয়নাল হাজারী।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফেনী-২ (ফেনী সদর) আসন থেকে ১৯৮৬, ১৯৯১ এবং ১৯৯৬ সালে তিনবার সাংসদ হিসেবে নির্বাচিত হন তিনি।হাজারী ১৯৯৬ সালে নির্বাচিত হবার পর, ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত ফেনীতে স’ন্ত্রাসের শিকার হয়ে প্রায় ১২০ জন রাজনৈতিক নেতা-কর্মীর মৃত্যু হয়। এই পেক্ষাপটের পেছেনে হাজারীকে সন্দেহ করা হয় এবং ২০০১ সালে তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে ১৬ আগস্ট রাতে হাজারীর বাসভবনে অভিযান চালায় যৌথ বাহিনী। এরপরই তিনি আত্মগোপনে চলে যান। এপ্রিল, ২০০৪ সালে দল থেকে বহিষ্কৃত ঘোষণা করা হয় হাজারীকে। চার বছর পর ২০০৯ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচন আওয়ামী লীগ পুনরায় ক্ষমতায় আসার পর তিনি ভারত থেকে দেশে ফিরে আসেন এবং আদালতে আত্মসমর্পণ করেন।

Loading...