নিজের স্বার্থে আপনি ফ্রন্টে এসেছিলেন, বঙ্গবীরকে গয়েশ্বর!

392

স্টাফ রিপোর্টার:
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় মন্তব্য করেছেন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী নিজের স্বার্থ বিবেচিত না হওয়ায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে বের হয়ে গেছেন।

শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে জাতীয়তাবাদী প্রজন্ম ৭১ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।
উল্লেখ্য, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে কাদের সিদ্দিকী বলেছিলেন, তিনি তারেক রহমানকে নেতা বানাতে ঐক্যফ্রন্টে যাননি।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দির মুক্তির দাবিতে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই অনুষ্ঠানে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর বের হয়ে যাওয়ার বিষয়ে মন্তব্য করেন গয়েশ্বর।

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘তার প্রতি সম্মান রেখেই আমি বলতে চাই। আপনি তারেক রহমানকে নেতা বানানোর জন্য ফ্রন্টে আসেন নাই। আর এটা আমরা জানি যে, আপনি আপনার রাজনৈতিক স্বার্থ বিবেচনায় ফ্রন্টে এসেছিলেন।

আর নিজের স্বার্থ বিবেচিত হয়নি বলেই সেখান থেকে আপনি ফেরত যাবেন, এটা অস্বাভাবিক কিছু না। আর এটা বোঝার মতো সক্ষমতা আপামর জনগোষ্ঠীর আছে।’

কাদের সিদ্দিকীকে উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আপনাকে একটা কথা বলতে চাই। আপনি তারেক রহমানকে নেতা বানাবেন কেন? কারণ ফ্রন্ট প্রতিষ্ঠিত হওয়ার আগেই তারেক রহমান নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন। আর তারেক রহমান নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত বলেই তো পত্র-পত্রিকায় তাকে নিয়ে আলোচনা হয়। তাকে নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে কথা হয়।

আর নেতা বলেই তো পক্ষে-বিপক্ষে কথা হয়। সুতরাং নেতা বলেই বিদেশে বসে তিনি দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। কিন্তু আকার-ইঙ্গিতে কেউ তার নেতৃত্বের প্রতি অনিশ্চয়তা প্রকাশ করেননি। আর তারেক রহমানকে নেতা আপনাকে বানাতে হবে? নেতা তৈরি হয় জনগণের ইচ্ছার ওপর।’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি আদালতে হবে- এই শব্দটা বিশ্বাস করতে আমার কষ্ট হয়। কারণ রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীর বিচার কখনো আদালত করে না।
রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীর বিচার হয় জনগণের আদালতে। আর আমরা দৃঢ়তা ও বিশ্বাসের সঙ্গে এবং জনগণের চোখের দিকে তাকিয়ে বলতে পারি, জনগণের আদালতে খালেদা জিয়া এখনো দোষী সাব্যস্ত হয় নাই।’

Loading...