গণশুনানিতে জনগণের কথা শোনা হয় না

31

স্টাফ রিপোর্টার: বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাবের ওপর গণশুনানি করছে ঠিকই কিন্তু সেই শুনানিতে জনগণের কথা শোনা হয় না। ঠিকই সরকারের ইচ্ছা অনুযায়ী দাম বাড়ানো হয়। এর আগে চলতি বছর গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রস্তাবের ওপর শুনানি হয়েছিল।

সাধারণ মানুষ গ্যাসের দাম বৃদ্ধি চায়নি। কিন্তু শুনানি শেষে ঠিকই দাম বাড়ানো হয়েছিল।’ বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) কাওয়ান বাজারের ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) ভবনের সামনে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশে গণসংহতি আন্দোলনের নেতারা এসব কথা বলেন৷

সমাবেশে সংগঠনের সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য মনির উদ্দিন পাপ্পু, জুলহাসনাইন বাবু, রাজনৈতিক পরিষদের সদস্য ফিরোজ আহমেদ প্রমুখ বক্তব্য দেন। বক্তারা বলেন, নিত্যপণ্যের দামের ওপর সরকারের নিয়ন্ত্রণ নেই। পেঁয়াজের দাম নিয়ে দেশে যে অস্থির পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তা নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি সরকার। এখনও দাম আকাশছোঁয়া। চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে গ্যাসের দাম বাড়ানোর ওপর শুনানি হয়েছে। সেই শুনানিতে অনেকেই বক্তব্য দিয়েছেন, বাইরে প্রতিবাদ হয়েছে।

কমিশন সবার কথা শুনেছে কিন্তু শেষ পর্যন্ত দাম বাড়ানো হয়েছে। তারা বলেন, সরকারের অপরিকল্পিত প্রকল্পের কারণে বিদ্যুতের দাম বাড়ছে। এই দামের বোঝা এখন জনগণের ঘাড়ে চাপানো হচ্ছে।

জনগণ এই বোঝা মেনে নেবে না। সংগঠনের পক্ষ থেকে দাম বাড়ানোর প্রস্তাবের নিন্দা জানানো হয়।
আরও পড়ুন: পাইকারি বিদ্যুতের দাম সাড়ে ১৯ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব

Loading...