হোস্টেলে ছাত্রী আটকা, বিদ্যুৎ-পানি বন্ধ করলেন বাড়িওয়ালা

91

সরকারি ছুটিতে রাজধানী বলতে গেলে ফাঁকাই। করোনা পরিস্থিতি বেসামাল হওয়ায় লকডাউন করা হয় রাজধানীর বেশিভাগ এলাকা। এমন পরিস্থিতিতে ধানমন্ডির একটি ছাত্রী হোস্টেলে এক ছাত্রী আটকা পড়েন। বাড়ির মালিক হোস্টেলটিতে বিদ্যুৎ ও পানির সরবরাহ বন্ধ করে দিয়ে লাপাত্তা।

করোনা পরিস্থিতির এই দুর্দিনে অসুবিধায় পড়েন এক ছাত্রী। অবশেষে পুলিশের হস্তক্ষেপে সেই হোস্টেলের কেটে ফেলা বিদ্যুৎ ও পানির সংযোগ আবার নতুন করে দেওয়া হয়েছে। ভাড়ার জন্য আপাতত তাকে যেন হোস্টেল থেকে বের করে না দেওয়া হয় সে ব্যবস্থাও করা হয়েছে।

শনিবার (২ মে) বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাজারীবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকরাম আলী মিয়া। তিনি বলেন, ‘খবর পেয়ে আমরা হোস্টেলে যাই। এ সময় ওই ছাত্রী যে হোস্টেলে থাকতেন, সেখানে বিদ্যুৎ ও পানির আবার ব্যবস্থা করা হয়েছে। একই সঙ্গে হোস্টেলের ম্যানেজারকে তিতুমীর কলেজের ওই ছাত্রীকে সেখানে রাখতে সব ধরনের ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে।

হোস্টেলটির মালিক একজন নারী। তবে তাকে পাওয়া যায়নি। এরপরও যদি ওই ছাত্রীকে বের করার চেষ্টা করা হয়, তাহলে হোস্টেলের ম্যানেজার ও মালিককে আইনের আওতায় আনা হবে।’

এর আগে তিতুমীর কলেজের ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী গণমাধ্যমের কাছে অভিযোগ করেন। তিনি জানান, ধানমন্ডির শঙ্কর বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন নিবেদিকা ছাত্রী হোস্টেলে আটকা পড়েছেন তিনি। হোস্টেল কর্তৃপক্ষের কাছে বাড়ি ভাড়া বকেয়া থাকায় হোস্টেলের ইউটিলিটি সার্ভিস বন্ধ করে দিয়েছেন বাড়িওয়ালা।

প্রসঙ্গত, বাড়িওয়ালা হোস্টেল কর্তৃপক্ষের কাছে ভাড়া পাবেন। কিন্তু সে ভাড়া হোস্টেল কর্তৃপক্ষের কাছে না চেয়ে ওই ছাত্রীর কাছে চাওয়া হয়। ছাত্রীটি ভাড়া দিতে অস্বীকৃতি জানালে হোস্টেলের বিদ্যুৎ ও পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেন মালিক।
তবে ঘটনার পর থেকে বাড়ির মালিক পলাতক রয়েছেন।