মায়ের লাশ নিয়ে বসে আছে দুই ছেলে, দাফনে এগিয়ে আসল না কেউ!

176

রাজধানীর মিরপুরে জয়গুন নেসা (৮৫) নামে এক হতভাগ্য বৃদ্ধার করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে সন্দেহ করে আত্মীয়-স্বজনরাসহ এলাকার কেউই লাশ দাফনের জন্য ওই বাসায় যায়নি। ফলে বাসায় মায়ের লাশ নিয়ে সকাল থেকে বসে আছেন দুই ছেলে।

আজ বুধবার (১৬ এপ্রিল) বিকেলে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাজধানীর মিরপুর-১ নম্বরের পাইকপাড়া আহমেদ নগরের একটি বাসায় মায়ের লাশ নিয়ে সকাল থেকে বসে আছেন তারামৃত নারীর ছেলে শাজাহান মিয়া জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার ভোররাতে তাদের মা জয়গুন নেসা (৮৫) কিডনি জনিত সমস্যায় মারা গেছেন। তার মধ্যে করোনার কোনো উপসর্গই ছিল না।

কিন্তু ওই নারী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন সন্দেহে এলাকাবাসী, এমনকি আত্মীয়-স্বজনরা কেউ লাশ দাফনের জন্য ওই বাসায় যায়নি।

স্থানীয়দের দাবি, মৃত ওই নারীসহ তার ছেলে শাহজাহান মিয়ারও করোনার উপসর্গ আছে। এমনকি তার পরিবারের সকলেই করোনা আক্রান্ত হতে পারে। তার পরিবারের সদস্যদের করোনা পরীক্ষা করলেই তিনি করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন কিনা তা জানা যাবে।

পুলিশ বলছে, মৃতের আত্মীয়-স্বজনরাও কেউ ভয়ে ওই বাড়িতে যাচ্ছে না। মৃত ওই মায়ের লাশের দাফনের জন্য স্বেচ্ছাসেবী কোনো সংগঠনের খোঁজ করা হচ্ছে। কোনো চিকিৎসকের কাছে থেকে ওই নারীর মৃত্যুর সনদপত্র নিতে পরিবারের সদস্যদের পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

শাজাহান মিয়া বলেন, ‘আমার দুই ছেলে, স্ত্রী এবং মাকে নিয়ে এই বাসায় থাকি। আজ ভোররাতে মা কিডনি জনিত সমস্যায় মারা গেলে সকাল থেকে সরকারি-বেসরকারি অনেক জায়গায় ফোন করে যোগাযোগ করেও এখন পর্যন্ত মায়ের দাফন-কাফনের ব্যবস্থা করতে পারিনি। মায়ের লাশ সামনে নিয়ে বসে আছি।’

মর্মান্তিক ঘটনাটির সত্যতা নিশ্চিত করে মিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মোস্তাফিজুর রহমান সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, মৃত ওই নারীর ছেলে আমার থানায় যোগাযোগ করেছে। আমি নিজে আইইডিসিআরে যোগাযোগ করেছি। এছাড়া আরও কয়েকটি জায়গায় কথা বলেছি। লাশ দাফন করতে তাদের প্রতিবেশী বা আত্মীয়-স্বজনরা কেউই এগিয়ে আসেনি।

তবে আইইডিসিআর ওই নারীর বিষয়ে শোনার পর প্রাথমিকভাবে জানিয়েছে, তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাননি। মৃত ওই নারীর লাশ দাফনের জন্য স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলোর সঙ্গেও যোগাযোগ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ওসি।